নেতানিয়াহুর পতন হবে কার হাত? দ্বিতীয় পর্ব | Daisnews24.com    
       
Daisnews24.com
শুক্রবার , ৭ মে ২০২১ | ১২ই শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
       
  1. ENGLISH
  2. অর্থ ও বানিজ্য
  3. আন্তর্জাতিক
  4. ইত্রামি
  5. ইসলাম
  6. ক্যাম্পাস
  7. খেলাধুলা
  8. জবস
  9. জাতীয়
  10. তথ্যপ্রযুক্তি
  11. পাঁচমিশালী
  12. প্রবাসে বাংলাদেশ
  13. ফটোগ্রাফি
  14. বিনোদন
  15. মতামত
     
               

নেতানিয়াহুর পতন হবে কার হাত? দ্বিতীয় পর্ব

 
প্রতিবেদক
  নিউজ ডেস্ক
মে ৭, ২০২১ ৫:৩৩ পূর্বাহ্ণ
                       
                       

নেতানিয়াহুর প্রস্তাব নাফতালি প্রত্যাখান করেছে। নাপতালি ও নেতানিয়াহুর মতো একই রকম হলেও তাদের বৈরিতাও বেশ। 

নেতানিয়াহুর এই প্রস্তাব প্রত্যাখান করার পরেও নাফতালি তার রাজনৈতিক কার্যক্রম একরকমের রেখেছে। নাফতালি ও ইয়ার লাপিড দুজনই তরুণদের মাঝে বেশ পরিচিত এবং জনপ্রিয়।


আন্তর্জাতিক ডেস্ক


২০১৩ সালে নাফতালি ও ইয়ার লাপিড দুজনেই রাজনীতিতে যাত্রা শুরু করে। তারা দুজনই মূলত তরুণদের জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে রাজনীতিতে এসেছে।

তারা তাদের প্রভাব ও শক্তিমত্তা দিয়ে নেতানিয়াহু এর দলে জোটে ভেড়ানো। তারা দুজন দুজনকে ভাই বলে ডাকতেন। এর আগে তারা দুজনেই নেতানিয়াহুএর মন্ত্রিসভায় ছিলেন।


আরও পড়ুনঃ নেতানিয়াহুর পতন হবে কার হাতে?


ইয়ার লাপিড, কিছুদিন নেতানিয়াহু মন্ত্রিসভার অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। কিছুদিন পর তা ছেড়ে দেন এবং কখনোই মন্ত্রিসভায় আর আসেন নি।

নাফতালি, নেতানিয়াহু এর মন্ত্রিসভা ছেড়ে দিলেও বিভিন্ন কাজে তিনি মন্ত্রিসভায় আবার যা হোক যুক্ত হন। রক্ষণশীলরা তার বিভিন্ন দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলেন।

২৩ শে মার্চ নির্বাচনের দিন নেতানিয়াহুকে নিয়ে ভোটারদের মাঝে যে মেরুকরণ তৈরি হয়, তা এখনো চলছে।


আরও পড়ুনঃ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় এর পরীক্ষা অনলাইনেঃ ইউজিসি


যদিও তার দুর্নীতির দায় স্বীকার করেছেন, সব দায় স্বীকার করার পরও তার রক্ষা হয়নি। করোনা

মোকাবেলায় ইজরায়েলের সফলতার কথা পুরো বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি হলেও তিনি নির্বাচনে বিভিন্ন আসনে লিকুদ বাহিনী হেরে যায়। যার জন্য তার বিশাল ব্যবধান তৈরি হয়েছে।

বুধবার ইয়ার লাপিড বলেন, আমরা এমন এক রাষ্ট্র চাই যেখানে কেউ ঘৃণা করবে না সকলে সকলের প্রতি সমন আচরণ করবে এবং সবাই সমানভাবে চলাচল করবে।


আরও পড়ুনঃ Virtual Workshop on “Youth Action on Climate Crisis”


তিনি আরো বলেন ইসরাইলের সকল রাজনৈতিক দলের সাথে তিনি সমানভাবে কাজ করতে চান, তবে তার উদ্দেশ্য তাকে ব্রাজিল থেকে চিরতরে বিদায় করার।

কিন্তু নাফতালির উদ্দেশ্যের মুখে এটি বিপরীত হিসেবে কাজ করবে কারণ ডানপন্থী বেশিরভাগ মানুষই তাকে অনেক ফলো করে এবং নেতানিয়াহুকে আদর্শ মানে।

তিনি নিজে অবৈধ বাসস্থান তৈরি না করলেও তিনি তাদের প্রচার করছেন এবং তাদেরকে সমর্থন জানিয়েছেন।


আরও পড়ুনঃ সিটি ব্যাংকে অফিসার নিয়োগ নিচ্ছে


এছাড়াও তিনি ফিলিস্তিনিদের স্বায়ত্তশাসনের কথা বললেও তিনি কখনোই ইজ ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিতে চান না।

অন্যান্য বিষয়গুলোর দিকে খেয়াল করলে দেখা যাবে যে তারা দুজনেই নেতা অনেকে পছন্দ করে এবং এছাড়া বাকি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাদের মধ্যে প্রচুর মিল রয়েছে।

ওয়ালা ওয়েবসাইটের রাজনৈতিক প্রতিবেদন বলেন, নতুন দিন আসছে নাকি তার দিন অবসান হয়ে যাচ্ছে তা সময় বলে দিবে।


প্রতি মূহুর্তের সেরা সংবাদ জানতে ভিজিট করুন।
www.facebook.com/daisnews24
www.twitter.com/DaisNews24
www.facebook.com/groups/daisnews24
#DaisNews24

সর্বশেষ - ক্যাম্পাস

আপনার জন্য নির্বাচিত
%d bloggers like this: